ক্যারিয়ারসাহিত্যস্কিল ডেভলপমেন্ট

যারা বই বের করতে চান তাদের জন্য প্রয়োজনীয় গাইডলাইন ( পর্ব -১)

বই প্রকাশ কীভাবে করতে হয়, এটা নিয়ে দেখলাম অনেকেরই বেশ কৌতুহল। তাই ভাবলাম আমি যা জানি এবং নিজের বই প্রকাশের কিছু অভিজ্ঞতা শেয়ার করি আগ্রহী পাঠকদের সাথে।
প্রথমেই একটা তিক্ত এবং কঠিন বাস্তব সত্য বলি আপনাদের। আপনি যদি ভেবে থাকেন বাংলাদেশে বই লিখে আপনি বিশাল বড়লোক টাইপের কিছু একটা হয়ে যাবেন, প্রতি মাসে পকেটে গাদি গাদি টাকা আসবে, বই বের হবার সাথে সাথেই মানুষ আপনাকে চিনে ফেলবে, প্রচুর পপুলারিটি পেয়ে ফেলবেন, তাহলে আমি আপনাকে বলবো – ” প্লিজ, বই বের করার কথা ভুলে যান। আপনি ফ্রিল্যান্সিং করুন। বাংলা এবং ইংরেজী কন্টেন্ট লিখুন, অনেক টাকা পাবেন। ভালো একটা লিঙ্কডইন একাউন্ট খুলে ফেলুন, প্রফেশনালভাবে কাজ করলে পপুলারিটি পেতেও দেরী হবে না। ”

কিন্তু আপনি যদি লেখালেখি নিয়ে সত্যিকারের প্যাশনেট হয়ে থাকেন, বই বের করা যদি আপনার জীবনের খুব প্রিয় একটা স্বপ্ন হয়ে থাকে এবং নাম, যশ, টাকার আশা না করে যদি মন থেকে বই লেখার কথা চিন্তা করে থাকেন, তাহলে আমি বলবো আপনি অবশ্যই বই লিখুন। প্রথম বইটা বের করার আগে আপনাকে প্রচুর ধৈর্য ধারণ করতে হবে। বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম, ব্লগ, পত্রিকা, ম্যাগাজিনে ইচ্ছেমতো লিখতে হবে।।আপনার নামটা পাঠক প্রকাশকদের জানাতে হবে। আর নিজের লেখনির পরিচিতি বাড়ানোর বর্তমান যুগে ফেসবুক বেশ বড় ভূমিকা পালন করছে। অনেক ভালো ভালো লেখক ফেসবুক থেকেই পরিচিতি পেয়েছেন। আমি নিজেই দীর্ঘ দেড় বছর একটানা ফেসবুকে গল্প পোস্ট করেছি, তারপর টুকিটাকি পরিচিতি পেয়েছি। আর কিছু ব্লগে লিখতাম, ছোটবেলায় রহস্যপত্রিকাতেও লেখা বের হতো।সে যাই হোক নিজের লেখনীর কিংবা লেখক সত্বার মোটামুটি একটু পরিচিতি অর্জন না করার আগ পর্যন্ত বই না বের করার জন্য সাজেস্ট করবো আমি। কারন প্রতিবছর এতো এতো বই বের হয় যে, পাঠক কোনটা ছেড়ে কোনটা কিনবে, সেটা নিয়েই ভীষনরকমের কনফিউজড থাকে৷ বেশীরভাগ পাঠক সাধারণত একটু পরিচিত নাম দেখেই বই টই কিনতে পছন্দ করে। আর প্রকাশকরাও অপরিচিত লেখকদের বই তেমন ছাপাতে চায় না বিনামূল্যে। কারন বই বিক্রি হয় না এবং তাদের লোকসানের মুখে পড়তে হয়।এমনিতে পরিচিত লেখকদের কাছে প্রকাশকরা এমনিতেই বই চায়৷ তবে চাইলে আপনি নিজেও বিভিন্ন প্রকাশনীর সাথে যোগাযোগ করে পান্ডুলিপি জমা দিতে পারেন। লেখা মানসম্মত হলে তারা অবশ্যই বই ছাপাবে।

কিছু প্রকাশনীর নাম, যারা নবীনদের ফ্রি বই বের করে –

১. নহলী৷ ( আমার দু’টো বই এখান থেকে বের হয়েছে। তাই আমি নহলী সাজেস্ট করবো।কারন এ প্রকাশনীতে আমি কমফোর্টেবল এবং অনেক কিছু জানি। পরবর্তী পোস্টে নহলী প্রকাশনী এবং আমার বই বের করার অভিজ্ঞতা জানাবো৷ আশা করি আপনারা অনেক প্রয়োজনীয় তথ্য পাবেন।
২.বাতিঘর
৩. আদী
৪. ভূমিপ্রকাশ
৫. নালন্দা
৬. রোদেলা

কাল একজন জিজ্ঞেস করেছিলেন মানসম্মত লেখা হয়েছে কীভাবে বুঝবেন?

মানসম্মত লেখা বোঝার জন্য প্রথমত আপনাকে প্রচুর বই পড়তে জানতে হবে। আপনি যখন প্রচুর বই পড়বেন, তখন এমনিতেই বুঝে যাবেন, কোন লেখাটা মানসম্মত আর কোনটা মানহীন। পাশাপাশি আপনাকে নিয়মিত প্রচুর লিখতে হবে। ভালো লেখক হতে হলে প্রচুর বই পড়া আর পাগলের মতো লিখতে পারার বিকল্প আর কিছুতেই নেই৷ নিজের লেখা বারবার রিভিশন দেবেন, দেখবেন অনেক ভুল পাবেন। ঐ ভুলগুলো চিহ্নিত করে ঠিক করুন। দেখবেন লেখা বেশ পারফেক্ট হয়ে যাবে। তাছাড়া সাহিত্য বোঝে, এমন একজন কিংবা কয়েকজনকে আপনার লেখা পড়তে দিন। তাদের গঠনমূলক সমালোচনার থেকে শিক্ষা নিয়ে নিজের লেখালেখির স্কিলকে আরও উন্নত করতে পারবেন আপনি।
এসব ছাড়াও একটি মানসম্মত লেখার মধ্যে আর যে গুণ থাকে, তা হলো –

১.নির্ভুল বানান ( এটা নিয়ে দেখলাম অনেক পাঠক আর প্রকাশকরা বেশ ভয়ঙ্কর রকমের খুঁতখুঁতে।)

২. কাহিনীর শুরুটা আকর্ষণীয় হতে হবে।

৩. লেখনীর ধরণ সহজ সরল এবং স্মুথ হলে পাঠক পড়ে আনন্দ পায়।

৪. ফিনিশিংটা ভালো দিতে হবে।
৫. লেখার মধ্যে একটা গল্প /শিক্ষামূলক কিছু থাকতে হবে।

৬. অযথা রাবারের মতো টেনে লম্বা করা যাবে না লেখা। এধরনের লেখা পড়তে বিরক্ত লাগে।

৭. লেখালেখির বিভিন্ন ধরণ, প্লট, প্যাটার্ন ইত্যাদি সম্পর্কে জ্ঞান অর্জন করতে হবে।

বই লিখতে কী লাগে?

  • বই লিখতে হলে সবার আগে একটা পরিপূর্ণ পান্ডুলিপি লিখে শেষ করতে হবে। এটা আপনি চাইলে ফোন কিংবা ল্যাপটপ দিয়ে লিখতে পারবেন। আমি নিজের তিনটা বই মোবাইল দিয়েই লিখেছি। বেশ সহজ একটা কাজ৷ বেশীরভাগ প্রকাশনী ডক ফাইল চায়। আবার অনেকে প্রিন্ট করা পান্ডুলিপি দিয়েও কাজ করে।

নিজের খরচে বই বের করতে চায় যারা –

অনেকে প্রকাশনীর ঝামেলায় না গিয়ে নিজের টাকা দিয়ে বই বের করে ফেলে। তো সেক্ষেত্রে যেকোন প্রকাশনীর স্বরনাপন্ন হলেই হবে। প্রকাশনীভেদে, বইয়ের ফর্মা,বইটি হার্ড কভার / পেপারব্যাক হবে, বইয়ের কপির সংখ্যার ওপর ভিত্তি করে বিভিন্ন পরিমাণ টাকা খরচ হয়। সাধারণত বেশীরভাগ প্রকাশনী ৩০০ / ৫০০/১০০০ কপি বই বের করে। তবে ৫০০ কপি বই বের করলে খরচ কম হয়।আর বই বের করতে ২০-৪০ হাজার টাকা খরচ হয়৷ তবে আমি সাজেস্ট করবো যে, টাকা দিয়ে বই বের না করে কষ্ট করে অনেক বছর স্ট্রাগল করে কোন প্রকাশনীর খরচে বই বের করতে।।এটার মতো গর্বের বিষয় আর কিছুতেই হতে পারে না৷ অনেক বছর পর যখন আপনি খুব বড় লেখক হয়ে যাবেন,তখন এই দিনগুলোর কথা মনে করলে বেশ গর্বিত বোধ করবেন৷ আমি নিজেও সে দিনটার অপেক্ষায় আছি যেদিন আমি খুব বড় একজন লেখক হবো এবং আমার স্ট্রাগলগুলোর কথা ভেবে মনে বল পাবো, গর্বিত হবো।

( চলবে)

Neela Moni Goshwami

জন্ম ২৭ ডিসেম্বর , ১৯৯৬, কুমিল্লা। ভীষন হাসিখুশী আর খানিকটা পাগল টাইপের এই মেয়েটা স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসে খুব। তার প্রিয় শখ বই পড়া, লেখালেখি করা আর ছবি আঁকা এবং প্রিয় স্বপ্ন নিজের লেখা একগাদা বই হাতে নিয়ে ঘুরে বেড়ানো! ভবিষ্যতে সে একজন সত্যিকারের ভালো লেখিকা হতে চায়। আর কাজ করতে চায় সুবিধাবঞ্চিত শিশু আর আশ্রয়হীন বৃদ্ধদের জন্য। বর্তমানে সে ন্যাশনাল কলেজ অফ হোম ইকোনমিক্স থেকে শিশু বিকাশ ও সামাজিক সম্পর্ক বিভাগে চতুর্থ বর্ষে পড়াশোনা করছে। লেখিকার " তাকে ভালোবেসে ", " কঙ্কাল সরোবর " এবং " এটিকুয়েটা " নামে তিনটি বই আছে।।তাছাড়া তিনি " রাইটার্স ক্ল্যাব বিডি " প্রজেক্টটির ফাউন্ডার।

এই রকম আরো পোস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close