রাইটার্স ক্লাব স্পেশাল

বুকস্টাগ্রামার্স : বই পড়তে অনুপ্রাণিত করছেন যারা

Writer: Mushfiquzzaman Mahim & Bhumika Das

সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে বইপ্রেমীদের কাছে বর্তমানে ‘বুকস্টাগ্রাম’ শব্দটি তুমুল জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ইনস্টাগ্রামে বইয়ের ছবি, বই নিয়ে আলোচনার জন্য যেসব অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করা হয় তা-ই বুকস্টাগ্রাম।  যারা এইসব বুকস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট পরিচালনা করে থাকেন তাদের বলা হয় বুকস্টাগ্রামার। বাংলাদেশেও এই বুকস্টাগ্রামারদের সংখ্যা নেহাত কম নয়। এদের মধ্যে আবার অনেকেই আছেন যাদের ফলোয়ার সংখ্যা কম হলেও তারা আরও অনেক ভালবাসার যোগ্য। আজ এমনই কয়েকজনের কথা বলছি।


@a_quirky_reader


অনেকেই মনে করেন বুকস্টাগ্রাম মানে শুধু বই আর বই, বই ছাড়া আর কিচ্ছু নিয়ে আলোচনা করা যাবে না। এই ধারণাটা তখনই ভুল প্রমাণিত হবে যখন আপনি বুকস্টাগ্রামারদের নিয়মিত অনুসরণ করবেন। এই যেমন নিশাত সালসাবিল রাকার কথাই ধরা যাক। তার পোস্টে আপনি ম্যান্ডালা থেকে শুরু করে সমসাময়িক যেকোনো ধরনের বিষয়ের আলোচনা পাবেন। 

তার ফিডের বাদামি ধরনের ভিন্টেজ ভাবটা সবার নজর কাড়ে। নিশাত বলে, আমার যেকোনো ভিন্টেজ বা পুরোনো আর্কিটেকচারের প্রতি একটা আলাদা ভালো লাগা লাজ করে। আর সেটাকে মাথায় রেখেই আমার এই আইডির প্রতিটি ছবির তৈরি হওয়া।

Goodreads : https://www.goodreads.com/user/show/83627689-nishat-raka

@thehijabireader 

এইটুকু মেয়ে অথচ কত পড়ে! আরে বলছি রুদমিলা নওশীন সোহার কথা। মাত্র ১৩ বছর বয়সী সোহার এবছরের লক্ষ্যে আছে ১০০ টি বই! সোহা বিশ্বাস করে বইয়ের মতো বিশ্বস্ত বন্ধু আর নেই। তাইতো সে সঙ্গী হিসেবে বেছে নেয় ইয়াং এডাল্ট, মিস্ট্রি, থ্রিলারসহ বিভিন্ন জনরার বই। তাছাড়া তার তোলা ছবিগুলো খুব চমৎকার।

@tiny.bookland


আমার মনে হয় বাংলাদেশের চমৎকার সব কনিষ্ঠ বুকস্টাগ্রামারদের মধ্যে সৈয়দা জানীতা মহিউদ্দিনের নাম আসবেই। তার বায়োর শুরুতেই লেখা “Reading, learning and sharing” এবং তার পুরো ফিড বইয়ে ভ্রমণের বিভিন্ন গল্পে ভরা। জানীতা সব ধরনের বই পড়লেও তার সবচেয়ে ভালো লাগে ফ্যান্টাসি ফিকশন পড়তে। নান্দনিক সব ছবি, মানানসই ক্যাপশন আর শেখার পড়ার এতো ইচ্ছে, সব মিলিয়ে বুকস্টাগ্রাম কমিউনিটির এক আদরের মুখ হচ্ছে জানীতা।

@nefelibata_reads


বুকস্টাগ্রাম কমিউনিটির আরেকজন চমৎকার সদস্য হচ্ছেন তাহসিনা মারযান। মোবাইলে সুন্দর সুন্দর ছবি তোলার জন্য মারযানকে বাহবা দিতেই হয়! 
প্রায় সকল জনরার বই পড়লেও তার পছন্দ হচ্ছে ডিটেকটিভ/মিস্ট্রি। ব্রাউন অ্যাসথেটিক ও আউটডোর ফটো এই দুই ধরনের ছবি নিয়েই মারযান তার ফিডের থিম তৈরির চেষ্টা করে থাকেন। আর ক্যাপশন হিসেবে বেছে নেন তার পছন্দের বিষয়গুলো।
Goodreads : https://www.goodreads.com/user/show/75734768-nefelibata-reads

@trina.lives

তাবাসসুম মোস্তাজীর! বই পড়ার শুরুটা হয়  ডিজনির রূপকথার গল্পগুলো দিয়ে। হাই স্কুলের ধাপ পেরিয়ে ইংরেজি সাহিত্যের সাথে বেশ ঘনিষ্টতা তৈরি হয়। ভালোবাসে সাহিত্যের থ্রিলার ক্যাটাগরি,বিশেষ করে সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার তার বেশ পছন্দের। বাংলা সাহিত্যের জনপ্রিয় লেখক শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় তার পছন্দের লেখকের তালিকায় শীর্ষে। বুকস্টাগ্রামার হিসেবে তারই মত অসাধারণ সব মানুষের সাথে কাজ করাই তার ইচ্ছা! এ বছরেরই ৫ই মে থেকে বুকস্টাগ্রামে তার যাত্রা শুরু হলেও এরই মধ্যে সে তার মত করে এগিয়ে যাচ্ছে!
Blog :  https://tabassummostazir.journoportfolio.com/

@book_monster_tjash


এতো এতো মহিলা বুকস্টাগ্রামারদের ভীড়ে হয়তো ভাবছেন কোনো পুরুষ বুকস্টাগ্রামারই বোধয় নেই। হাহা! চলুন তাহলে পরিচিত হওয়া যাক তিয়াশের সাথে।অভ্র আর্কাইভ তিয়াশ। পছন্দ করেন সমসাময়িক, হরর, সাইকোলজিক্যাল জনরার বই পড়তে। আরও পছন্দ করেন ভালো লাগা বইগুলো থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে ফ্যানআর্ট করতে। পোস্টের ক্যাপশন হিসেবে বই নিয়ে ভালো লাগা মন্দ লাগা মতামত জুড়ে দেন। আর ছবিতে মাঝে মাঝে এডিটের কারসাজিও দেখা যায়। 
Goodreads :   https://www.goodreads.com/user/show/77219994

@ramisa.reads

হাতে লেখা পুরোনো চিঠি, শুকনো কিংবা সতেজ পাতা, অধুনালুপ্ত বাদামি রঙের কয়েন’, এসব জিনিসের সৌন্দর্য কি একধরনের নস্টালজিক ভাব আনে না?
বলছিলাম রামিসা বুশরার কথা। তার আইডিতে ঢুকলেই একটা পুরোনো এ্যাসথেটিক ভাব পাওয়া যায়। আচ্ছা বলুন তো, কোন ধরনের বই যেকোনো সময় পড়া যায় আর মুহূর্তেই মন ভালো করে দেয়। হ্যাঁ, শিশুসাহিত্য! তাই তো রামিসার অনেক পোস্টগুলোই তার প্রিয় শিশুসাহিত্যের বইকেন্দ্রীক। শিশু সাহিত্য ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের ক্লাসিক, সমসাময়িক উপন্যাস, কিশোর উপন্যাস – এ জনরার বইগুলো সবসময়ই তার লিস্টে থাকে। তার পোস্টে বাংলাসাহিত্যের বিভিন্ন বইয়ের পরামর্শ থেকে শুরু করে বই পর্যালোচনা করতে দেখা যায়। তাই বাংলা সাহিত্যপ্রেমীদের জন্য রামিসার ফিডকে একধরনের রত্ন ভাণ্ডার বলা যেতে পারে।
Goodreads : https://www.goodreads.com/user/show/76985971-ramisa

@adrinreads


মাশিয়া আদরিন!ভালোবাসেন ফ্যান্টাসি জনরার বই পড়তে। তার তোলা বইয়ের ছবিগুলো তারই পছন্দের বেশ কিছু বুকস্টাগ্রামারদের থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে করে থাকেন।  আর ছবির সাথে ক্যাপশন?আদরিনের ছবিগুলোর ক্যাপশন কিন্তু পুরোটাই আদরিনের মনের উপর নির্ভর করে। তিনি তার পছন্দমতো, নিজস্ব ধারার ক্যাপশন তার ছবির সাথে যুক্ত করে থাকেন। বাংলাদেশি বুকস্টাগ্রামার হিসেবে আদরিন বেশ ভালো এগিয়ে যাচ্ছেন।

@_cucumariyas.books


জান্নাতুল রাফি মারিয়া, নিজেকে পরিচয় দিচ্ছেন একজন ‘Booktrovert’ হিসেবে। অবশ্য সেটা তার ইনস্টাগ্রাম ফিড দেখলেই স্পষ্ট। নানান বইয়ের ছবিতে ভরপুর তার পুরো ফিড, সাথে আছে চায়ের কাপ, শুকনো ফুল অথবা নান্দনিক বুকমার্ক। শুধুই কি ছবি? তার ছবির ক্যাপশনে বিভিন্ন বইয়ের পর্যালোচনা করতে দেখা যায়। রাফির সাথে কথা বলে জানতে পারি, তার পছন্দ থ্রিলার হলেও সামাজিক উপন্যাস বেশি পড়া হয়। মাঝে মাঝে তিনি তার পছন্দ, অপছন্দ কিংবা লাইফ আপডেটও শেয়ার করে থাকেন।
Goodreads account :https://www.goodreads.com/_cucumariyasbooks_

@murmursandmusings


মাহজাবীন মুনতাহা! ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে বুকস্টাগ্রামার হিসেবে তার চলা শুরু হয়। বাংলা সাহিত্য দিয়েই বই পড়ার সূচনা ঘটে। হাই স্কুল জীবন চলাকালীন প্রচুর বাংলা বই নিয়ে ঘাটাঘাটি করতেন! তবে এখন ইংরেজীটাই বেশি পড়ে থাকেন। হরর আর রোমান্টিক বই বাদে মোটামুটি সব ধরনের বই পড়তেই ভালোবাসেন মুনতাহা! তবে ফিকশন,হিস্টোরিক্যাল ফিকশন,হাই/এপিক ফ্যান্টাসি পড়তে একটু বেশিই পছন্দ করেন। সাদা ব্যাকগ্রাউন্ড আর আলো-ছায়ার খেলা দিয়েই বইয়ের ছবি তুলতে পছন্দ করেন । ছবির পাশাপাশি ক্যাপশনে বিভিন্ন বইয়ের রিভিউ, রিকমেন্ডেশন এবং সাহিত্য ছাড়াও বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা করে থাকেন।

@bookreads_by_kaniz


কানিজ ফাতেমা কলি! বাংলা সাহিত্য দিয়েই তার বই পড়ার শুরু আর বাংলা সাহিত্যটাই তার সবচাইতে প্রিয়! সবধরনের বই নিয়েই ঘাটাঘাটি করতে পছন্দ করেন কানিজ! তবে ক্ল্যাসিক আর এডভেঞ্চারের দিকে ঝোঁকটা যেন একটু বেশি। তার বুকস্টাগ্রাম থিম নিয়ে বলতে গেলে সে নিজের মত করে নিজের পড়া বইগুলো সবার সাথে শেয়ার করতে চাই! বুকস্টাগ্রামে সে নিজস্ব স্বাধীনতাও খুঁজে পেয়েছেন। বইয়ের ছবি তুলতে বরাবরই ভালোবাসেন কানিজ। বুকস্টাগ্রামে আসার তার এক বড় কারণ হচ্ছে বইপড়ুয়াদের সাথে এক বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলে সে যেন তার সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করাটাকে অর্থপূর্ণ করে তুলতে পারে!

@__her_fairytales_world__

আচ্ছা আপনার রঙ কেমন লাগে? বিভিন্ন রঙের ফুল,রঙিন চুরি,বিভিন্ন রঙে ফুটে ওঠা ছবি –  কি ভালই না লাগে! সেরকমই এক রঙিন বুকস্টাগ্রাম ফিড আছে নাফিয়া আফরিন অহনার। 
নাফিয়ার ভালো লাগে রোমান্টিক উপন্যাস পড়তে আর ভালো লাগে সেইসব পড়ার মুহূর্তগুলির গল্প তার বুকস্টাগ্রামে সাজিয়ে তুলতে। নাফিয়া বিভিন্ন সময় বিভিন্ন বইয়ের রিভিউ লিখে থাকে। নাফিয়ার প্রতিটি ছবিই এতো যত্ন করে তোলা যে ইচ্ছে করে যেন দেখতেই থাকি!

এই রকম আরো পোস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close