স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা

ডেটক্স বাথ

ডেটক্স কনসেপ্টটা আমাদের দেশে একেবারেই নতুন। লোকে বলে এর সাহায্যে শরীরের বাড়তি মেদ কমানো যায়। আবার অনেকে বলে রূপচর্চার অনন্য জাদুকরী পানীয় এই ডেটক্স। এই পানি পান করে নিমিষেই দূর করা যায় শরীরের ভেতর ঘাপটি মেরে থাকা বিষাক্ত পদার্থগুলোকে। সাধারন মানুষ,ছোট্ট বাচ্চা,গর্ভবতী মহিলা সবার জন্য উপকারী এ ডেটক্স ওয়াটার। সাধারনত ঠান্ডা পানিতে যেকোন ফল, হার্বস বা সবজি বড় বড় করে কেটে বেশ কিছুক্ষন ডুবিয়ে রাখলে যে মিশ্রনটি পাওয়া যায়,সেটিই ডেটক্স ওয়াটার। সুস্বাদু এই পানি পান করে বেশ উপকার পাওয়া যায়। অনলাইন ঘাটলে পেয়ে যাবেন হাজারটা রেসিপি। কিন্তু ডেটক্স বাথ কি ট্রাই করেছেন কখনও? কিভাবে করে জানেন ? কি উপকারিতা এটার?
আসুন জেনে নিই ডেটক্স বাথ প্রক্রিয়া আর উপকারিতা।

ডেটক্স বাথের উপকারিতা :

১.শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ অপসারন করে।

২. দুশিন্তা দূর করে।

৩. শান্তিময় ঘুম দেয়।

৪. হাড়ের ব্যাথা দূর করে।

৫. ত্বকের ফুসকুড়ি দূর করে

৬. মাথা ব্যাথা নিরাময়ে সাহায্য করে।

৭. ঠান্ডা, ফ্লু ও অন্যান্য অসুস্থতায় আরোগ্য লাভে সাহায্য করে।

যেভাবে ডেটক্স বাথ করবেন :

প্রথমে আপনার বাথটাবটি একগাদা পানি দিয়ে ভর্তি করে নিন। তারপর নিয়ে আসুন উপকারী কিছু ভেষজ উপাদান, যেমন : সামুদ্রিক লবস,গ্রিন টি, আদা, মধু,কাঁচা দুধ, হার্বাল তেল ইত্যাদি। পরম যত্নে মিশিয়ে দিন আপনার গোসলের পানিতে। হালকা নেড়েচেড়ে দিন হাত দিয়ে। তারপর শরীরটা এলিয়ে দিন পানিভর্তি বাথটাবের ভেতর। চুপচাপ শুয়ে থাকুন ২০ কিংবা ৪০ মিনিট। ব্যাস হয়ে গেলো আপনার ডেটক্স বাথ। নির্দিষ্ট সময় শেষে ধীরে ধীরে উঠে পড়ুন অতি সাবধানে ( হয়তো ক্ষানিক্ষন আপনি ক্লান্ত কিংবা দুর্বল বোধ করতে পারেন।) ।

নোট :

১. ডেটক্স বাথে যাওয়ার আগে কিংবা বাথ শেষ হওয়ার সাথে সাথে কিছু খাওয়া নিষেধ।

২. বাথ শেষে প্রচুর পরিমানে পানি পান করতে হবে।

Neela Moni Goshwami

জন্ম ২৭ ডিসেম্বর , ১৯৯৬, কুমিল্লা। ভীষন হাসিখুশী আর খানিকটা পাগল টাইপের এই মেয়েটা স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসে খুব। তার প্রিয় শখ বই পড়া, লেখালেখি করা আর ছবি আঁকা এবং প্রিয় স্বপ্ন নিজের লেখা একগাদা বই হাতে নিয়ে ঘুরে বেড়ানো! ভবিষ্যতে সে একজন সত্যিকারের ভালো লেখিকা হতে চায়। আর কাজ করতে চায় সুবিধাবঞ্চিত শিশু আর আশ্রয়হীন বৃদ্ধদের জন্য। বর্তমানে সে ন্যাশনাল কলেজ অফ হোম ইকোনমিক্স থেকে শিশু বিকাশ ও সামাজিক সম্পর্ক বিভাগে চতুর্থ বর্ষে পড়াশোনা করছে। লেখিকার " তাকে ভালোবেসে ", " কঙ্কাল সরোবর " এবং " এটিকুয়েটা " নামে তিনটি বই আছে।।তাছাড়া তিনি " রাইটার্স ক্ল্যাব বিডি " প্রজেক্টটির ফাউন্ডার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close