রাইটার্স ক্লাব স্পেশাল

অণুগল্প কী?

অনেকেই জানতে চাইছেন অণুগল্প কী? কীভাবে লিখে?

মূলত তাদের জন্যই আজকের এই লেখাটি।ইন্টারনেটের  বিভিন্ন  আর্টিকেল ঘেঁটে সংগ্রহ করে লেখা।
অনুগল্প হলো মূলত ছোটগল্পের বাচ্চা।ছোট্ট শিশু যেমন তার আধো আধো অল্প-স্পল্প শব্দের সাহায্যে  মায়ের কাছে সম্পূর্ণ মনের ভাব প্রকাশ করে, অনুগল্প হলো ঠিক সেরকম।এখানে একদম অল্পশব্দের ব্যবহারের মাধ্যমে লেখক পাঠকের কাছে সম্পূর্ণ গল্পটির মূল অর্থ প্রকাশ করবেন। অনুগল্পের মূল বৈশিষ্ট্য হল শব্দ চয়নের দক্ষতা । পাশাপাশি বাক্য বিন্যাসের কেরামতি এবং আরো ভালো হয় যদি শেষ পর্বে গল্পের মধ্যে একটা চমক বা টুইস্ট  রাখা যেতে পারে । ভাষা হতে হবে ঝরঝরে। উইকিপিডিয়ার মতে অনুগল্পের সর্বোচ্চ শব্দসীমা হলো ১০০০ শব্দ।

অনুগল্প অনেক বৈশিষ্ট্য থাকতে পারে।কিছু উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্যগুলো হলো –

১.অল্প পরিসরে অল্প কথায় অনন্য উন্মোচন।
২. অণুগল্পে কোন গল্প থাকতেও পারে কিংবা নাও থাকতে পারে
৩.বর্ণনার বাহুল্য নেই।
৪. কিছু না-বলা কথা উহ্য রেখে এক দারুণ রহস্য তৈরি করা।
৫. পাঠ করার পর নিজের মত করে অর্থ খুঁজে নেবে পাঠক।
৬.অণুগল্প সবটুকু বলে না, বেশিরভাগই থেকে যায় পাঠকদের জন্য।

#পৃথিবীর সবচেয়ে ছোট(অনুগল্প) ২টি গল্প

পৃথিবীর সবচেয়ে ছোট গল্পটির লেখক মার্কিন সাহিত্যিক ও সাংবাদিক Ernest Hemingway (আর্নেস্ট হেমিংওয়ে)। গল্পটি মাত্র ৬টি শব্দে লেখা।
গল্পটি ছিল এমন :

For sale. Baby shoes. Never worn.

গল্পটির বাংলা অনুবাদ :

বিক্রির জন্য। শিশুর জুতা। ব্যবহৃত নয়।

গল্পটিতে লেখক বুঝাচ্ছেন, গর্ভে বাচ্চা আসার পর একজন মমতাময়ী মা শিশুর জন্য অগ্রীম একজোড়া জুতা কিনে রাখেন। কিন্তু ভাগ্যের কী নির্মম পরিহাস! বাচ্চাটা যখন জন্মগ্রহণ করলো, তখন দেখা গেলো সে মৃত! মমতাময়ী মা কিছুদিন পর বাচ্চার জন্য কেনা সেই জুতা জোড়া নিয়ে রাস্তার পাশে বিক্রির জন্য বসে গেলেন! মায়ের হাতে প্ল্যাকার্ডে লেখা ছিলো—
“ছোট বাচ্চার এক জোড়া জুতো বিক্রি হবে। অব্যবহৃত।”

গল্পটা যতোটা বিস্ময়কর, তারচেয়ে বেশী করুণ! আর্নেস্টের এই গল্প পরবর্তীকালে খুব খ্যাতি লাভ করে! আর এই ধরনের ছোটোগল্পকে বলা হয় “ ফ্ল্যাশ ফিকশন ” বা অণুগল্প।

এখানে পৃথিবীর আরেকটি ক্ষুদ্রতম গল্প বা ‘ফ্লাশ ফিকশন’-এর কথা উল্লেখ করা যেতে পারে। ‘Knock’ নামের এ গল্পটির লেখক Fredric Brown (ফ্রেডরিক ব্রাউন)। এটা আাবার পৃথিবীর সংক্ষিপ্ততম ভূতের গল্প। ফ্রেডরিক ব্রাউনও একজন আমেরিকান লেখক।
গল্পটি হলো এমন :

“The last man on Earth sat alone in a room. There was a knock on the door…”

গল্পটির বাংলা অনুবাদ :

পৃথিবীর সর্বশেষ মানুষটি একাকী একটা রুমে বসে আছেন। হঠাৎ কে যেন তার দরজায় নক করল…।

Neela Moni Goshwami

জন্ম ২৭ ডিসেম্বর , ১৯৯৬, কুমিল্লা। ভীষন হাসিখুশী আর খানিকটা পাগল টাইপের এই মেয়েটা স্বপ্ন দেখতে ভালোবাসে খুব। তার প্রিয় শখ বই পড়া, লেখালেখি করা আর ছবি আঁকা এবং প্রিয় স্বপ্ন নিজের লেখা একগাদা বই হাতে নিয়ে ঘুরে বেড়ানো! ভবিষ্যতে সে একজন সত্যিকারের ভালো লেখিকা হতে চায়। আর কাজ করতে চায় সুবিধাবঞ্চিত শিশু আর আশ্রয়হীন বৃদ্ধদের জন্য। বর্তমানে সে ন্যাশনাল কলেজ অফ হোম ইকোনমিক্স থেকে শিশু বিকাশ ও সামাজিক সম্পর্ক বিভাগে চতুর্থ বর্ষে পড়াশোনা করছে। লেখিকার " তাকে ভালোবেসে ", " কঙ্কাল সরোবর " এবং " এটিকুয়েটা " নামে তিনটি বই আছে।।তাছাড়া তিনি " রাইটার্স ক্ল্যাব বিডি " প্রজেক্টটির ফাউন্ডার।

এই রকম আরো পোস্ট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close